সভ্যতার বিকাশে কায়িক ও মেধা শ্রম উভয়ই গুরুত্বপূর্ণ

পৃথিবীতে কোনো কাজই ছোট কিংবা বড় নয়। সকল কাজই মানুষের জন্য কল্যাণকর। শ্রম শব্দটার সাথে আনুষ্ঠানিক পরিচয় ক্লাস ফোরে বা তারও কিছু পরে। ‘শ্রমের মর্যাদা’ রচনার মাধ্যমে। শ্রমের সাথে আষ্টেপৃষ্ঠে জড়িয়ে আছে শ্রমিকের নাম, শ্রমিকের ঘাম। তাই শ্রম বলতে কায়িক শ্রমকেই নিজেদের মাঝে গেঁথে নিয়েছি।

তাই তো নেয়া উচিত। শ্রমিকের কষ্ট, ত্যাগ আর বঞ্চনার ইতিহাস পর্বত সমান। শ্রমিকের ইতিহাস কালে কালে পরিবর্তন হয়েছে ঠিকই, তবে বঞ্চনা মুছে যায় নি পুরোপুরি। তাই আজও মে দিবস এলেই শ্রমিকের অধিকার নিয়ে ভাবতে হয় সঙ্গত কারণেই।

কায়িক শ্রমের মাধ্যমে যারা সভ্যতাকে গড়ে তুলেছেন, লালন-পালন করছেন, তাদের প্রতি রইলো বিনম্র শ্রদ্ধা। এবার মূল প্রসঙ্গে যাই।

শ্রমের আগে কায়িক বিশেষণ ব্যবহার করেছি মানেই বুঝতে পেরেছেন, শ্রমের অন্য কোনো ধরণ নিয়েও আলাপ এগোতে চাচ্ছি। ধরণটা হলো মেধাশ্রম। এই শব্দটা আজকের দিনে একটু বেখাপ্পা ঠেকতে পারে। তবে, এসব নিয়ে কথা বলার দিন তো আজই।

কায়িক শ্রম মানুষকে শারীরিকভাবে সুস্থ থাকতে সহায়তা করে। নিয়মিত ব্যায়াম করলে শরীরের কর্মক্ষমতা ঠিক থাকে এবং রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। আবার কাজে নয়োজিত থাকলে শরীর ও মন দুটোই ভালো থাকে। তাই প্রত্যেক মানুষের জন্য কায়িক পরিশ্রম প্রয়োজন।

মেধা ব্যয় করে যে কাজ করা হয় তাই মেধাশ্রম। যে কাজগুলো মেধাশ্রমের মাধ্যমে করা হয় সেগুলো মানুষের মনে আনন্দ জোগায় ও এগিয়ে যেতে সাহায্য করে। 

তথ্য প্রযুক্তির এই যুগে অনলাইন ফ্রি ল্যান্সিং এ জীবন গড়ছেন অনেকই। এই যে হাজার হাজার ওয়েবসাইট রয়েছে চোখের সামনে। এগুলো বানানোর পেছনের মস্তিষ্কের খাটনি নিশ্চিত আমার আপনার চোখের আড়াল হয়েছে।

সভ্যতার বিকাশে কায়িক ও মেধা শ্রম উভয়ই গুরুত্বপূর্ণ

নিরাপদে আপনি যখন ঘুমাচ্ছেন, তখন পুলিশের কোনো এক সদস্য টহল দিচ্ছে নির্ঘুম। আমাদের চোখের আড়ালে।

এসব শ্রম ঘাম ঝড়াচ্ছে না ঠিকই; তবুও করছে ক্লান্ত;শ্রান্ত। আমাদের মস্তিষ্ক খেটেই চলেছে। অবিরাম। যে শ্রম দেখা যায় না, ছোঁয়া যায় না, পরিমাপ করা যায় না দৃশ্যমান কাজের পরিমাণ দিয়ে।

তবুও শ্রমিকদের কায়িক শ্রমের সাথে এই মেধাশ্রমের মিশেল না হলে গড়ে উঠতো কি কোনো সভ্যতা? হতো কি কোনো উন্নয়ন? সম্ভব হতো আমাদের স্বাভাবিক জীবন-যাপন?

কায়িক পরিশ্রমেই শিল্পী ও বিজ্ঞানী উদ্ভাবনী শক্তিকে বাস্তব সত্যে পরিণত করিয়া উহাকে মানুষের মঙ্গলে নিয়োজিত করেন। মানসিক শক্তি ও কায়িক শ্রম অঙ্গাঙ্গিভাবে জড়িত।

৭ম (সপ্তম) শ্রেণী বাংলা এসাইনমেন্ট সমাধান/ উত্তর ২০২১ – ৫ম সপ্তাহের

Updated: May 31, 2021 — 6:17 pm

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *