News

পৃথিবীর গঠন ও পর্বতের শ্রেণীবিভাগ – এইচএসসি ২০২১ ভূগোল ২য় সপ্তাহের এসাইনমেন্ট উত্তর

২০২১ সালের এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের মানবিক বিভাগের জন্য ভূগোল দ্বিতীয় সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রশ্ন সরকারের প্রকাশিত হয়েছে। প্রিয় শিক্ষার্থী আপনি যদি ভূগোল বিষয়ের অ্যাসাইনমেন্ট করে থাকেন তাহলে এই পোস্টটি আপনার জন্য প্রযোজ্য। এখানে আমরা দ্বিতীয় সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রশ্ন ও উত্তর আলোচনা করেছি।

দ্বিতীয় সপ্তাহের এসাইনমেন্ট শুরু হওয়ার সাথে সাথে ভূগোল বিষয়টি অনেক গুরুত্বপূর্ণ মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থীদের কাছে। বেশিরভাগ শিক্ষার্থীরাই এই বিষয়টিকে বেছে নেন এবং তাদের মতে এই বিষয়টি অনেক কঠিন।

ভূগোল বিষয়ের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশিত হওয়ার সাথে সাথে আমরা আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করেছি এবং এর উত্তর জোগাড় করে তা দিতে বাধ্য হলাম। আশা করি আমার পোস্টটি আপনাদের ভালো লাগবে এবং শিক্ষার্থীরা তোমাদের সোশ্যাল মিডিয়াতে তোমাদের বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে পারো। চলুন দেখা যাক আজকের এসাইনমেন্ট এর উত্তর গুলো।

এইচএসসি ভূগোল দ্বিতীয় সপ্তাহ এসাইনমেন্ট কাজ

এইচএসসি দ্বিতীয় সপ্তাহের এসাইনমেন্ট এর কাজ হিসেবে ভূগোল বিষয়টিকে বেছে নেওয়া হয়েছে। আমরা এখন দ্বিতীয় অধ্যায়ঃ পৃথিবীর গঠন থেকে অ্যাসাইনমেন্ট এর প্রশ্ন টি প্রকাশ করব।

দ্বিতীয় সপ্তাহের ভূগোল অ্যাসাইনমেন্ট কাজ: পৃথিবীর গঠন ও পর্বতের শ্রেণীবিভাগ

Top Stories

শিখনফল/বিষয়বস্তু: পৃথিবীর বাহ্যিক ও অভ্যন্তরীণ গঠন ব্যাখ্যা করতে পারবে।

পৃথিবীর ভূমিরূপ অবস্থান ও গঠন কাঠামো বর্ণনা করতে পারবে।

নির্দেশনা (সংকেত/ধাপ/পরিধি): ভূত্বক ও পৃথিবীর অভ্যন্তরীণ গঠন চিত্রসহ বর্ণনা।

পৃথিবীর বিভিন্ন প্রকার পর্বত তার অবস্থান গঠন কাঠামো চিত্রসহ বর্ণনা।

উপরোক্ত প্রশ্নটি দিয়ে এসাইনমেন্ট করার জন্য শিক্ষার্থীকে ২০ নাম্বার বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। যদি কোনো শিক্ষার্থী অনেক ভালো করে থাকে তাকে 13 থেকে 16 নাম্বার দেওয়া হবে। আর যদি কোনো শিক্ষার্থী উত্তম লিখে থাকে তবে তাকে 11 থেকে 12 নাম্বার দেওয়া হবে। ভালো লেখা শিক্ষার্থীরা 8 থেকে 10 নাম্বার পাবে এবং খাটের নিচে যে সকল শিক্ষার্থীর নম্বর পাবে তাদেরকে আরও উন্নত করার জন্য চেষ্টা করতে হবে।

পৃথিবীর গঠন

পৃথিবীর অভ্যন্তরীন গঠন অনেকটা পেয়াজের মতো বিভিন্ন খোলসাকৃতির স্তরে বিন্যস্ত। এই স্তরগুলোকে তাদের বস্তুধর্ম এবং রাসায়নিক ধর্ম দিয়ে সংজ্ঞায়িত করা যায়। পৃথিবীর বাহিরের দিকে রয়েছে সিলিকেট দিয়ে তৈরি কঠিন ভূত্বক বা ক্রাস্ট, তারপর অত্যন্ত আঠালো একটি ভূ-আচ্ছাদন বা ম্যান্টল, একটি বহিঃস্থ মজ্জা বা কোর যেটি ম্যান্টলের চেয়ে তুলনামূলকভাবে কম আঠালো এবং সব শেষে একটি অন্তঃস্থ মজ্জা।

পৃথিবীর অভ্যন্তরীন গঠন বৈজ্ঞানিক ভাবে বোঝার জন্য কোন স্থানের ভূসংস্থান এবং গভীরতা, বহিঃস্থ এবং অন্তঃস্থ শিলাস্তর, আগ্নেয়গিরি এবং অগ্ন্যুৎপাত, মহাকর্ষীয় এবং তরিৎচুম্বকীয় ক্ষেত্রের পরিমাপ, ভূকম্পন তরঙ্গের বিশ্লেষণ ইত্যাদি বিষয় পর্যবেক্ষণ করা হয়।

পৃথিবীর গঠনকে দু’ভাবে বর্ণনা করা যায়। এক- যান্ত্রিক উপায়ে যেমন, বস্তুবিদ্যা, অথবা দুই- রাসায়ানিক ভাবে। যান্ত্রিক ভাবে দেখলে, পৃথিবীকে অশ্বমন্ডল, আস্থেনোমণ্ডল, মেসোমণ্ডল, বহিঃস্থ মজ্জা এবং অন্তঃস্থ মজ্জা এই ক’টি ভাগে ভাগ করা হয়েছে। আর রাসায়নিক ভাবে পৃথিবীকে ভাগ করা হয়েছে ভূত্বক, উপরস্থ ভূ-আচ্ছাদন, নিম্নস্থ ভূ-আচ্ছাদন, বহিঃস্থ মজ্জা এবং অন্তঃস্থ মজ্জা এই ক’টি ভাগে। ভূপৃষ্ঠ থেকে পৃথিবীর ভূ-তাত্ত্বিক উপদানগুলোর গভীরতা নিচের তালিকায় দেখানো হয়েছে।

পৃথিবীর এই ধরনের স্তর বিন্যাস পরোক্ষ ভাবে বিভিন্ন সময়ে ভূমিকম্পের কারণে সৃষ্ট ভূ-কম্পন তরঙ্গের প্রতিফলন এবং প্রতিসরণ দ্বারা প্রভাবিত হয়েছে। ভূ-মজ্জার কোন একটি অংশে যখন শিয়ার ওয়েভের চেয়ে ভিন্ন গতিবেগের ভূ-কম্পন তরঙ্গ প্রবাহিত হয়, তখন সাধারণত শিয়ার ওয়েভ বা মাধ্যমিক ভূ-তরঙ্গ ভূ-মজ্জার ভেতর দিয়ে প্রবাহিত হতে পারে না।

আলো যে ভাবে প্রিজমের মধ্য দিয়ে যাবার সময় বেঁকে যায়, সেভাবে পৃথিবীর বিভিন্ন স্তরে ভূ-কম্পন তরঙ্গ তার গতিবেগের ভিন্নতার কারণে প্রতিসৃত হয়; এই প্রতিসরণ হয়ে থাকে স্নেলের সূত্র অনুযায়ী। একইভাবে প্রতিফলনের কারণে ভূ-কম্পন তরঙ্গের গতিবেগ অনেক বেশি বেড়ে যায়, ঠিক যেভাবে আয়নায় প্রতিফলিত হয়ে আলো ছড়িয়ে যায় অনেক দিকে।

পর্বতের শ্রেণীবিভাগ

পর্বত বলতে আমরা ভূ-পৃষ্ঠের এমন একটি অবস্থানকে বুঝি যার উচ্চতা অধিক এবং যা খাড়া ঢাল বিশিষ্ট। পর্বত সাধারণতঃ কমপক্ষে ৬০০ মিটার বা ২০০০ ফুট উচ্চতা বিশিষ্ট হয়।

পর্বতের শ্রেনীবিভাগ  – পর্বত গুলিকে তাদের উৎপত্তি, গঠন, উচ্চতা, আকৃতি ও ঢালের তারতম্যের উপর ভিত্তি করে পর্বত গুলিকে চারটি শ্রেনীতে ভাগ করা হয়ে থাকে, যথা –

(ক) ভঙ্গিল পর্বত

(খ) স্তূপ পর্বত

(গ) আগ্নেয় পর্বত ও

(ঘ) ক্ষয়জাত বা বিচ্ছিন্ন পর্বত। 

উপসংহারঃ প ব যা যে, ভূপৃষ্ঠে অবস্হিত পর্বতগুলো বিভিন্ন প্রকৃতির। এদের আকৃতি, আয়তন, উচ্চতা, বিন্যাস প্রভৃতি স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্য। এটি একটি দেশ বা অঞ্চলের জলবায়ুর নিয়ন্ত্রক। পর্বত প্রাকৃতিক সৌন্দর্য বৃদ্ধিসহ মানবজীবনের উপর উল্লেখযোগ্য প্রভাব বিস্তার করে।

আরো দেখুন:

HSC 2021 সমাজকর্ম ২য় সপ্তাহের এসাইনমেন্ট উত্তর দেখুন

এইচ এস সি ২০২১ সমাজবিজ্ঞান ২য় ও ৩য় সপ্তাহ এসাইনমেন্ট উত্তর এখানে ক্লিক করে দেখুন

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *