Class 6 Science (ষষ্ঠ বিজ্ঞান) 5th Week Assignment Solution

ষষ্ঠ শ্রেণির বিজ্ঞান ৫ম সপ্তাহের এস্যাইনমেন্ট সমাধান এখানে দেখুন
এ্যাসাইনমেন্টের ক্রম: নির্ধারিত কাজ-৩
অধ্যায় ও বিষয়বস্তুর শিরােনাম:
অষ্টম অধ্যায়: মিশ্রণ

Science (বিজ্ঞান) 5th Week Assignment Work Solution:

১-২ পাঠ : মিশ্রণ ও দ্রবণ

৩-৪ পাঠ : দ্রব ও দ্রাবক

৫-৭ পাঠ : সম্পৃক্ত দ্রবণ ও অসম্পৃক্ত দ্রবণ।

১০-১২ পাঠ : লবনাক্ত পানি হতে লবণের স্ফটিক প্রস্তুতকরণ।

একাদশ অধ্যায়: বল এবং সরল যন্ত্র

৩য় পাঠ: সরল যন্ত্র।

৪র্থ পাঠ : লিভার

৫ম-৬ষ্ঠ পাঠ: লিভারের শ্রেণিবিভাগ

৭ম পাঠ: হাতুড়ি

৮ম-৯ম পাঠ: হেলানাে তল ও কপিকল

এ্যাসাইনমেন্ট/নির্ধারিত কাজ:

১। এন্টিবায়ােটিক সিরাপ ঝাঁকিয়ে খেতে হয় কেন? এই মিশ্রণকে কী বলে?

উত্তর:


এন্টিবায়োটিক মিশ্রণ একটি সাসপেনশন। সাসপেনশন কিছুক্ষণ রাখলেই মিশ্রণের দ্রব এবং দ্রাবক আলাদা হয়ে যায়, মিশ্রণের মধ্যে দৃরব নিচের দিকে থিতিয়ে পড়ে। এজন্য চিকিৎসকেরা এন্টিবায়োটিক সিরাপ প্রেসক্রাইব করলে খাওয়ার আগে ঝাঁকিয়ে নিতে বলে।
ডাক্তারি পরামর্শ অনুযায়ী অ্যান্টিবায়োটিক প্রতিনিয়ত খাচ্ছেন অনেকেই। কিন্তু এই ওযুধ খেলে মেনে চলতে হয় মেনে চলতে হয় বেশ কয়েকটি নিয়ম, যা হয়তো অনেকেই ঠিক সময় মতন পালন করেন না।
বোতলের ওষুধ কিভাবে খাবেন তা নিয়ে অনেকেই বেশ ঝাঁমেলায় পড়ন। কখন ঝাঁকানো লাগবে, আর কখন লাগবে না এ ব্যাপারে অনেককেই দ্বিধায় পড়তে হয়।


বোতলের ওষুধ দুই প্রকার হয়- সিরাপ এবং সাসপেনশন। সিরাপগুলো সমস্বত্ত্ব দ্রবন, তাই এটাকে ঝাঁকানো লাগে না। এটা পুরো দ্রবনেই সমান ভাবে মিশে থাকে। আর সাসপেনশনগুলো অসমস্বত্ত্ব দ্রবন। ছোট ছোট ওষুধের দানাগুলো পানিতে ঠিকমত দ্রবীভূত হয় না। তাই রেখে দিলে ওষুধের গুঁড়াগুলো তলানি পড়ে যায়। তাই খাওয়ার আগে ঝাঁকুনি দিলে, তা পুরো পানিতে সমানভাবে মিশ্রিত হয়। সুতরাং যেসব বোতলের গায়ে সিরাপ লেখা, তা ঝাঁকানোর দরকার নাই। আর যেসব বোতলের গায়ে সাসপেনশন লেখা, তা খাওয়ার আগে ঝাঁকিয়ে খাওয়া বাঞ্চনীয়।
সকল ধরনের ওষুধ ডাক্তারদের পরামর্শ অনুযায়ী সঠিক সময় মত সেবন করা উচিত ।

২। দুধ কী জাতীয় মিশ্রণ, ব্যাখ্যা কর।

উত্তর:


দুধ হচ্ছে একটি কলয়েড, যেটি পানি ও চর্বি দিয়ে তৈরি।
কলয়েড হলো যে সকল তরল পদার্থের মধ্যে অদ্রবণীয় পদার্থের ক্ষুদ্র কণাসমূহ প্রায় সর্বএ বিরাজ করে সেই দ্রবনকে কলয়েড দ্রবণ বলে।
সাধারণত তরল পদার্থে অদ্রবণীয় পদার্থসমূহ মিশ্রণ তৈরির একটু পরেই নিচে অথবা উপরে চলে যায়। কিন্তু কলয়েড এর ক্ষেত্রে এটার বিপরীত কাজ করে। ক্ষুদ্র অদ্রবণীয় পদার্থ গুলো মিশ্রণের সবএই একই পরিমানে থাকে। যে ধর্মের কারণে এমনটা হয় সেই ধর্মই কলয়েট ধর্ম।
উদাহরণঃ- দুধ। দুধের মধ্যে পানি এবং চর্বি বিদ্যমান আমরা জানি পানিতে চর্বি অদ্রবণীয় সুতরাং মিশ্রণের পর চর্বি ভেসে উঠার কথা। ভেসে না উঠে সর্বত্র সমভাবে বিরাজ করছে। এই মিশ্রণটিই কলয়েড মিশ্রণ। কলয়েড মিশ্রণে অদ্রবণীয় পদার্থের আকার ২nm থেকে 500 nm পর্যন্ত। এর বেশি হলে সেটা কলয়েড হবে না।

৩। নিচের ছকে ছবিগুলাে দেখে i) ও ii) নং এর উত্তর দাও:

সরল যন্ত্র i) কোন শ্রেণির লিভার যুক্তি দাও কীভাবে যান্ত্রিক সুবিধা বাড়ানো যায়
১ম চিত্রের যাঁতি হলো ২য় শ্রেণির লিভার।

কারণ, এই ক্ষেত্রে ভার থাকে মাঝখানে এবং প্রযুক্ত বল ও ফালক্রাম দুই প্রান্তে অবস্থান করে।

যাঁতির ক্ষেত্রে ভর (যেমন সুপারি) কে যত বেশি ফালক্রামের কাছে রাখা যাবে,

সুপারি কাটতে তত কম বল প্রয়োগ করতে হবে।

এক্ষেত্রেও ভারবাহুর দৈর্ঘ্য কমিয়ে বা বলবাহুর দৈর্ঘ্য কমিয়ে কাজ সহজ করা হয়।

উত্তর:

২য় চিত্রের হাতুড়ি হলো ১ম শ্রেণির লিভার।

কারণ, এই ক্ষেত্রে ফালক্রামের অবস্থান প্রযুক্ত বল ও ভারের মাঝখানে থাকে

একটি হাতুড়ির সাধারণত দুই প্রান্ত থাকে।

এক প্রান্ত দিয়ে কাঠে লোহা ঢুকানো হয় এবং অন্য প্রান্তে কাঠ থেকে লোহা বের করা হয়।

হাতুড়ি দিয়ে যখন লোহা বের করা হয় তখন হাত দিয়ে হাতুড়িটির হাতল ধরে বল প্রয়োগ করা হয়।

আবার যেখানে লোহাটি থাকে তার পাশে ঠেস দিয়ে এটি উঠানো হয় যেটি ফালক্রাম হিসেবে কাজ করে।

এক্ষেত্রে লোহা বের করার বাধা ভার হিসেবে কাজ করে।

এখানে ফালক্রামটি মাঝখানে কাজ করে।

এভাবে কাজ করে সুবিধা বাড়ানো যাবে।

উত্তর:


মূল্যায়ন নির্দেশক:

  • নির্ভুল তথ্য ও যুক্তিসম্মত ব্যাখ্যা প্রদান;
  • প্রশ্নের চাহিদা অনুযায়ী উত্তর প্রদানের সক্ষমতা;
  • সরল যন্ত্র চিহ্নিত করার সক্ষমতা;
  • সরল যন্ত্র ব্যবহার করে কীভাবে যান্ত্রিক সুবিধা বাড়ানাে যায় তার কৌশল;
  • প্রশ্নের অনুধাবন ক্ষমতা
  • বিষয়বস্তুর গভীরতা
  • প্রয়ােগ ক্ষমতা


ক্লাস ৬ ইংরেজি এসাইনমেন্ট সমাধান দেখুন

ষষ্ঠ শ্রেণীর ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা এসাইনমেন্ট সমাধান দেখুন

ষষ্ঠ শ্রেণীর ICT এসাইনমেন্ট সমাধান দেখুন

ক্লাস ৬ বাংলা এসাইনমেন্ট সমাধান দেখুন
ষষ্ঠ শ্রেণীর গণিত এসাইনমেন্ট সমাধান দেখুন

ক্লাস ৬ বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট সমাধান দেখুন
ষষ্ঠ শ্রেণীর কৃষি এসাইনমেন্ট সমাধান দেখুন

ক্লাস ৬ গার্হস্থ্য অর্থনীতি এসাইনমেন্ট সমাধান দেখুন


ষষ্ঠ শ্রেণির বিজ্ঞান অ্যাসাইনমেন্ট

প্রথম অধ্যায়ঃ বৈজ্ঞানিক প্রক্রিয়া ও পরিমাপ

দ্বিতীয় অধ্যায়ঃ জীবজগৎ


এসাইনমেন্ট এর জন্য নির্ধারিত কাজ

১/ বিজ্ঞান কি?

ভৌত বিশ্বের যা কিছু পর্যবেক্ষণযোগ্য, পরীক্ষণযোগ্য ও যাচাইযোগ্য, তার সুশৃঙ্খল, নিয়মতান্ত্রিক গবেষণা ও সেই গবেষণালব্ধ জ্ঞানভাণ্ডারের নাম বিজ্ঞান। ল্যাটিন শব্দ সায়েনটিয়া (Scientia) থেকে ইংরেজি সায়েন্স শব্দটি এসেছে, যার অর্থ হচ্ছে জ্ঞান। বাংলা ভাষায়বিজ্ঞান শব্দটির অর্থ বিশেষ জ্ঞান।

২/ উদ্ভিদের বেঁচে থাকার জন্য পানি দরকার কিনা তার পরীক্ষার জন্য বৈজ্ঞানিক প্রক্রিয়ার ধাপগুলো কি কি হবে?
উত্তর:


৩/ তোমার একটি বইয়ের দৈর্ঘ্য 20 সেন্টিমিটার প্রস্থ 15 সেন্টিমিটার এবং উচ্চতা 1 সেন্টিমিটার এরূপ 50 টি বইয়ের আয়তন কত?
৪/ আধুনিক শ্রেণীকরণ পদ্ধতিতে অ্যামিবা ও মাশরুম কোন রাজ্যের অন্তর্গত, এদের বৈশিষ্ট্য লিখ।

প্রােটিস্টা রাজ্যের বৈশিষ্ট্যঃ নিচে প্রােটিস্টা রাজ্যের বৈশিষ্ট্যগুলাে উল্লেখ করা হল

(ক) এই রাজ্যের জীব দেহের কোষ সুগঠিত নিউক্লিয়াস যুক্ত।

(খ) এরা এককোষী।

(গ) একক বা দলবদ্ধ থাকতে পারে।

ফানজাই বা ছত্রাক রাজ্যের বৈশিষ্ট্যঃ নিচে ফানজাই বা ছত্রাক রাজ্যের বৈশিষ্ট্যগুলাে উল্লেখ করা হল

(ক) দেহে ক্লোরােফিল না থাকায় বর্ণহীন।

(খ) ক্লোরােফিল না থাকায় নিজের খাদ্য নিজে তৈরি করতে পারে না।

(গ) এরা সাধারণত পানিতে বাস করে না।

(ঘ) এরা আলাে-অন্ধকার উভয় পরিবেশে বাঁচতে পারে।

(ঙ) এদের কোষ প্রাচীর কাইটিন দিয়ে তৈরি।

৫/ সাইকাস, সুপারি গাছ, মস, কাঁঠাল গাছ, সরিষা। উল্লেখিত উদ্ভিদগুলো কোন ধরনের তাদের বৈশিষ্ট্য লিখ।
উত্তর:

ষষ্ঠ শ্রেণির ৪র্থ সপ্তাহের বিজ্ঞান এ্যাসাইনমেন্ট/নির্ধারিত কাজ

এ্যাসাইনমেন্টের ক্রম: নির্ধারিত কাজ-২

অধ্যায় ও বিষয়বস্তুর শিরােনাম:

সপ্তম অধ্যায়: পদার্থের বৈশিষ্ট্য এবং বাহ্যিক প্রভাব

১-৩: পদার্থের বৈশিষ্ট্য ও শ্রেণিবিন্যাস

৪-৬: ধাতু ও অধাতুর বৈশিষ্ট্য

৭-৮: ধাতু ও অধাতুর বিদ্যুৎ পরিবাহিতা

সপ্তম অধ্যায়: পদার্থের বৈশিষ্ট্য এবং বাহ্যিক প্রভাব

  • পাঠ ৯-১১: গলনাঙ্ক ও স্ফুটনাঙ্ক

এ্যাসাইনমেন্ট/নির্ধারিত কাজ:

  • ক) বিদ্যুৎ পরিবাহী ও অপরিবাহী পদার্থের নাম লিখ।
  • খ) বিদ্যুৎ পরিবহনে তামার তার ব্যবহারের কারণ কী?
  • গ) উদ্দীপকের ১ম চিত্রে মােম গলে পড়ার পরবর্তী অবস্থা ব্যাখ্যা কর।
  • ঘ) চিত্রের পদার্থ দুটির গলনাংক ও হিমাংক কি একই? পাঠ্যপুস্তকের আলােকে বিশ্লেষণ কর।
Updated: December 4, 2020 — 12:44 pm

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *